হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগেabir

  

হাড় নিরাময় প্রক্রিয়া সব হাড় ভাঙ্গার জন্য একই রকম হয়। হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগে বা কি খেলে হাড় জোড়া লাগে তার ধারণা আমাদের অনেকের আছে। হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগে এবং হাড় জোড়া লাগে কিভাবে যারা জানেন না কিন্তু হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগে তা জানতে চান তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট। 

হাড় হল এক ধরনের সংযোগকারী টিস্যু যা হাড়ের কোষ এবং ক্যালসিয়াম এর মাধ্যমে শক্তিশালী হয়। হাড়ের কোষ চার প্রকার অস্টিওক্লাস্ট, অস্টিওসাইট, অস্টিওব্লাস্ট এবং হাড়-আস্তরণ-কোষ। এই পোস্ট থেকে আপনারা হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগে এবং পায়ের পাতার হাড় ভাঙার চিকিৎসা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

সূচিপত্রঃ হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগে

কিভাবে একটি হাড় জোড়া লাগে?

হাড় জোড়া লাগে কিভাবে তার ৩টি প্রক্রিয়া আছে। মানে হাড় জোড়া লাগে ৩টি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তা হলঃ ইনফ্লামমেশন, হাড়ের উত্পাদন এবং হাড়ের পুনর্নির্মাণ। নিচে হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগে তা আলোচনা করবো।

ইনফ্লামমেশনঃ হাড় ভাঙার পরপরই ব্যথা শুরু হয় এবং অনেক দিন স্থায়ী হয়। হাড় ভেঙ্গে গেলে সেখানে রক্তপাত হয়, যার ফলে হাড় ভাঙার জায়গায় ব্যথা হয় এবং রক্ত জমাট বাঁধে। সেই রক্ত হাড় জোড়া লাগাতে নতুন হাড় তৈরির জন্য সাহায্য করে। হাড় ভাঙ্গা অপারেশন ভিডিও দেখলেই আপনারা তা বুঝতে পারবেন।

হাড়ের উত্পাদনঃ হাড়ের উত্পাদন শুরু হয় যখন জমাট বাঁধা রক্তকে তন্তুযুক্ত টিস্যু এবং তরুণাস্থি দিয়ে প্রতিস্থাপিত করা হয়। হাড় জোড়া লাগতে হাড় ভাঙার পর যে রক্ত জমাট বাঁধে সেটা থেকে নতুন টিসু ও ছোট ছোট নতুন হাড় তৈরি করে। এর সাথে সাথে হাড় জোড়া লাগানোর দোয়া পাঠ করলে আল্লাহর দোয়াতে তাড়াতাড়ি ভালো হয়ে যাবে।

আরো পড়ুনঃ কম্পিউটার নেটওয়ার্ক এর উদ্দেশ্য কি 

হাড়ের পুনর্নির্মাণঃ হাড়ের পুনর্নির্মাণ হয় হাড় জোড়া লাগার শেষ পর্যায় যেটা কয়েক মাস ধরে চলে। হাড়ের পুনর্নির্মাণে হাড় তৈরি হতে থাকে এবং কম্প্যাক্ট হয়ে যায় তারপর হাড় তার আসল আকারে ফিরে আসে। এবং হাড়ের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক হয়ে যায়। এই কাজ যেন তাড়াতাড়ি হয় তার জন্য হাড় ভেঙে গেলে কি কি খাবার খাওয়া উচিত ও কি খেলে হাড় জোড়া লাগে সেটা জেনে তা খেলে আপনারা ভালো ফলাফল পাবেন। 

হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগে

হাড় ভেঙ্গে গেলে সেখানে স্বাভাবিক ভাবে জোড়া লাগতে সাধারণত ৬ থেকে ১২ সপ্তাহ সময় লাগে। কিন্তু বাচ্চাদের হাড় প্রাপ্তবয়স্কদের তুলনায় দ্রুত জোড়া লাগে। পা এবং গোড়ালি ভেঙ্গে গেলে সার্জন ঠিক করে দিবেন রোগী কতদিন পর হাটতে চলতে পারবে। হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগে সেটা নির্ভর করে আপনার কোথায়, কতটুকু এবং কিভাবে ভেঙ্গেছে।

এছাড়াও হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগে সেটা সঠিক চিকিৎসার ওপর ও নির্ভর করে। হাড় ভাঙার পর যদি যথাযথ ভালো ও তাৎক্ষণিক চিকিৎসা নেওয়া হয় তাহলে আশা করা যায় তাড়াতাড়ি হাড় জোড়া লাগতে পারে।

হাড় তাড়াতাড়ি জোড়া লাগতে কি সাহায্য করে?

যদি হাড় ভাঙার পর অস্ত্রোপচার করে একটি হাড় কাটা হয় তখন হাড় তাড়াতাড়ি জোড়া লাগার জন্যে অপারেশনের আগে পরে কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হয় সেটা আমরা হাড় ভাঙ্গা অপারেশন ভিডিও দেখলে বুঝতে পারবো। সার্জন হাড়ের দ্রুত বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টিকর খাদ্য খাওয়ার পরামর্শ দিতে পারেন আপনারা কি জানেন হাড় ভেঙে গেলে কি কি খাবার খাওয়া উচিত বা কি খেলে হাড় জোড়া লাগে। না জানলে জেনে নিতে হবে।

ধূমপান ত্যাগ করা এবং ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে হতে পারে। যেন হাড়ের জোড়া খুব তাড়াতাড়ি লাগে তাই এসবের পাশাপাশি আল্লাহর কাছে হাড় জোড়া লাগানোর দোয়া ও চাইতে হতে। ধূমপান এবং রক্তে শর্করার বেশি মাত্রা হাড়ের নিরাময়ে বাঁধা দিতে পারে।

আরো পড়ুনঃ কম্পিউটার নেটওয়ার্ক এর উদ্দেশ্য কি     

ভাঙা হাড়ের সমস্ত রোগীদের জন্য চলাফেরা বন্ধ করে দিতে হবে এবং ভালভাবে অনেকদিন বেড রেস্ট নিতে হবে। হাড়ের ফ্র্যাকচারের ধরন বা অস্ত্রোপচার পদ্ধতির উপর নির্ভর করে ডাক্তার রোগীকে নড়াচড়া করার নির্দেশ দিতে পারে কিন্তু পায়ের পাতার হাড় ভাঙার চিকিৎসা একটু জটিল হয়।

একবার হাড় পর্যাপ্ত পরিমাণ ভাবে ভালো হয়ে গেলে, শারীরিক থেরাপি খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। রোগীর জন্য তাদের শারিরিক ব্যায়াম করা তাদের শরীরে শক্তি এবং ভারসাম্য নিয়ে আসতে সাহায্য করতে পারে এবং স্বাভাবিক জীবন যাপনে ফিরে আসতে সহায়তা করতে পারে।

হাড় নিরাময়ে বাধা দিতে পারে

বিভিন্ন কারণ আছে যা তাড়াতাড়ি হাড় নিরাময় করতে বাঁধা দিতে পারে। এর মধ্যে রয়েছেঃ

  • হাড়ের টুকরো জোড়া না লাগার আগেই খুব তাড়াতাড়ি ওজন বহন করা
  • ধূমপান করা যা রক্তনালীকে ছোট করে এবং রক্ত সঞ্চালন কমিয়ে দেয়
  • কিছু অসুখ যেমন ডায়াবেটিস, হরমোন-সম্পর্কিত সমস্যার কারণে
  • কিছু ওষুধ যেমন কর্টিকোস্টেরয়েড এবং অন্যান্য ইমিউনোসপ্রেসেন্টস
  • ফ্র্যাকচার যা গুরুতর জটিল বা সংক্রমিত হয়
  • বয়স বেশি হলে
  • পুষ্টিকর খাবার না খাওয়া
  • কম মাত্রায় ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন ডি নেওয়া

কিভাবে হাড় নিরাময়ে ধীরে ধীরে চিকিত্সা করা যেতে পারে? 

যদি হাড় তাড়াতাড়ি ভালো না হয় তাহলে সার্জন হাড়ের বৃদ্ধি বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন চিকিত্সার অন্য বিকল্প পদ্ধতি বেছে নিতে পারেন। যেমন দীর্ঘ সময়ের জন্য একদম নড়াচড়া বন্ধ করে দেওয়া, হাড় বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রোটিন দিতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ ইংরেজিতে দক্ষতা অর্জনের উপায়  

এছাড়াও বেশি বেশি ক্যালসিয়াম খেতে দিতে পারেন। আপনি যদি জানেন হাড় ভেঙে গেলে কি কি খাবার খাওয়া উচিত বা কি খেলে হাড় জোড়া লাগে তাহলে সেগুলো বেশি বেশি খান। বিশেষ করে ক্যালসিয়াম থাকে এরকম খাবার বেশি খান। 

হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগে - শেষ কথা

উপরের আলোচনা থেকে আমরা জানতে পারি যে হাড় জোড়া লাগতে কতদিন সময় লাগে। হাড় আমাদের শরীরের লাঠির মত কাজ করে। হাড় ছাড়া আমরা চলাফেরা করতে পারবো না। হাড় ভেঙে গেলে অনেক কিছুর ওপর নির্ভর করে তা ঠিক করা হয়। [জব আইডি=২২৪৯৮]


এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

বন্ধুমহল আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url